ফুটবল খেলায় হ্যান্ড গ্লাভসের বিবর্তন

ফুটবল খেলায় হ্যান্ড গ্লাভসের বিবর্তন

ফুটবল খেলার একজন অপরিহার্য অংশ হচ্ছেন একজন গোলকীপার, আর একজন গোলকিপারের অপরিহার্য অংশ হলো তার হ্যান্ড গ্লাভস। আর ফুটবল ইতিহাসে এই হ্যান্ড গ্লাভস এর বিবর্তন নিয়েই এই লেখা।

                                                 

১৮৮৫ সালে ওয়েস্ট ইয়র্কশায়ার এর একজন ব্যবসায়ী উইলিয়াম সাইকস সর্বপ্রথম গোল কিপিং গ্লাভস এর পেটেণ্ট লাভ করেন। তিনি বুঝতে পেরেছিলেন অদূর ভবিষ্যতে খেলাধুলার দুনিয়ায় এই বস্তুটির চাহিদা বৃদ্ধি পাবে এবং পরবর্তীতে তাই হয়। কিন্তু ফুটবল খেলায় এই হ্যান্ড গ্লাভস সর্বপ্রথম কে পরিধান করেছেন তা নিয়ে অনেকের অনেক মত রয়েছে। ধারণা করা হয় ১৯০৯ এর দিকে ওয়েলস ইন্টারন্যাশনাল লেই রিচমন্ড রুসে মাঝে মাঝে খারাপ কন্ডিশনে সাদা রঙের এক জোড়া গ্লাভস পরিধান করতেন তবে নরমাল কন্ডিশনে তিনি আবার খালি হাতেই নেমে পড়তেন। বিশ্বযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে অনেকেই হাতে ব্যাণ্ডেজ জড়িয়ে কখনো কখনো গোলকিপিং করতেন। লিভারপুল এর নামকরা গোলকীপার এলিসা স্কট মাঝে  মাঝে হাতের সুরক্ষায় মোটা পশম পরিধান করতেন। তবে ১৯২২ এবং ১৯২৪ এর এফএ কাপ ফাইনালে জেমস মিচেল এবং টমি জ্যাকসন হ্যান্ড গ্লাভস পরে ফাইনাল খেলতে নামেন। কিন্তু দুঃখের বিষয় দুইজনই ফাইনাল হেরে যান।

তবে ফুটবলে হ্যান্ড গ্লোভসের প্রতিকৃৎ যদি কাউকে বলতে হয় তিনি হলেন আর্জেন্টাইন লিজেন্ডারি গোলরক্ষক আমাদেও কারিজ্য।| ১৯৪০ এর দশকে  তিনি রিভারপ্লেটের হয়ে নিয়মিত হ্যাড গ্লাভস পরে খেলা শুরু করেন। শুধু সেটাই নন তিনি গ্লাভস হতে অসাধারণ পারফরমেন্স করে রিভারপ্লেট কে অনেক ট্রফি জিততে সহায়তা করেন। ফলশ্রুতিতে ফুটবলে হ্যান্ড গ্লোভসের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পায়। পরবর্তীতে লিজেন্ডারি ইংলিশ গোলকীপার গর্ডন ব্যাংকস হ্যান্ড গ্লাভস পরিধান শুরু করেন। ১৯৬৬ এর ওয়ার্ল্ড কাপ ফাইনালে  তিনি  ওয়েস্ট জার্মানির বিপক্ষে হ্যান্ড গ্লাভস পড়েন এবং জুলেরিমে ট্রফিটি জিতেন। পরবর্তীতে ১৯৭০ এর ওয়ার্ল্ড কাপে সর্বপ্রথম কোনো গোল কিপার এর জন্য স্পেশালি হ্যান্ড গ্লাভস তৈরী করা হয় যা পরে ব্যাংকস ওই ওয়ার্ল্ড কাপ খেলেন। এভাবেই হ্যান্ড গ্লাভস আস্তে আস্তে গোলকিপারদের প্রয়োজনীয় বস্তুতে পরিণত হয়। ১৯৮০ এর শেষের দিকে এটি খুবই স্বাভাবিক হয়ে দাঁড়ায় এবং খালি হাতে গোলকীপার গোলকিপিং করতে নামা তখন বিরল  ঘটনা হয়ে দাঁড়ায়। 

                                               

সময়ের পরিক্রমায় হ্যান্ড গ্লোভসের ধরণ পাল্টেছে। বিভিন্ন কোম্পানি এসে বিভিন্ন রকমের হ্যান্ড গ্লাভস এর প্রচলন করেছে। ল্যাটেক্স ফোম এর অন্তর্ভুক্তি গোলকিপিং কে অনেক অ্যাডভান্সড করেছে। গোল কীপাররা এখন তাদের হাতে প্রচুর  সিকিউরিটি পান। হাতের গ্রিপিং ও সিকিউরিটির উপর ভিত্তি করে তিন ধরণের গ্লাভস এর চলন  বর্তমানে রয়েছেঃ 

  • ফ্লাট-পালমেড গ্লাভস
  • নেগেটিভ কাট
  • রোল ফিঙ্গার গ্লাভস

এর সাথেই নিত্য নতুন প্রযুক্তি যোগ করা হচ্ছে গোলকিপারদের গ্লাভসে। হাতের আঙুলের সুরক্ষার উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন কাট ও প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে। যেমন বর্তমানের নম্বর ওয়ান গোলকীপার ম্যানুয়েল নয়্যার ২০১৩ সালে এক্সট্রা সুরক্ষার জন্য তার ডান হাতে  এডিডাস প্রিডেটর এর  ৪ আঙ্গুল বিশিষ্ট গ্লাভস পরে খেলা শুরু করেছিলেন যেখানে মিডল ফিঙ্গার ও ইনডেক্স ফিঙ্গার একসাথে যুক্ত ছিল। ফ্রান্স এর গোল কিপার হুগো লোরিস বর্তমান সময়ে তার হ্যান্ড গ্লাভস এর ব্যাক হ্যান্ড এ উহলস্পর্টসের 3D এমবসড ল্যাটেক্স শোকজন নামক প্রযুক্তির গ্লাভস পরে খেলা শুরু করেছেন। সময়ের সাথে আরো নিত্যনতুন প্রযুক্তির ব্যবহারে গ্লাভস আরো আধুনিক হতে থাকবে তা বলা বাহুল্য। 

নতুন আর্টিক্যাল পাবলিশড হওয়া মাত্রই পড়তে চান?

আজই সাবস্ক্রিপশন করে নিন