ফুটবল ফ্যানদের সবচেয়ে বড় মিলনমেলার ইতিকথা

ফুটবল ফ্যানদের সবচেয়ে বড় মিলনমেলার ইতিকথা

যদি কেউ জিজ্ঞেস করে, Football Fans Bangladesh কি? 
আপাত দৃষ্টিতে হয়ত একটা গ্রুপ, যাতে সোয়া লাখের বেশি মেম্বার আছে। কিন্তু গ্রুপের মেম্বারদের যদি জিজ্ঞেস করা হয়, দেখা যাবে বেশির ভাগ মানুষের একটাই উত্তর হবে, FFBD (Football Fans Bangladesh এর শর্ট নাম) একটা পরিবার‍, যেখানে নানান যায়গার, নানার বর্ণের ফুটবল ফ্যান তথা বিভিন্ন দেশ বা ক্লাবের ফ্যানদের একসাথে বসবাস। পরিবারের মতই হাসি-ঠাট্টা, ঝগড়া-ফ্যাসাদ, আবেগ-কান্না নিয়ে মিলে মিশে থাকে এখানের মেম্বাররা। চলে খুনসুটি, চলে হিংসা, আবার গড়ে ওঠে বন্ধুত্ব, ভাতৃত্ববোধ। খুব সম্ভবত বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ফুটবল ফ্যানদের মিলনমেলা এই ফুটবল ফ্যান বাংলাদেশ।
ফুটবল নিয়ে গ্রুপের মেম্বাররা নিজেদের জ্ঞান, চিন্তা ভাবনা, আবেগের বহিঃপ্রকাশ ঘটায় এখানে, আবার বিশ্লেষণ মুলক লিখা দিয়ে অন্যকে বুঝতেও সাহায্য করে।

 

FFBD গ্রুপটির এডমিনবৃন্দ

 

গতকাল, ১৪ জুলাই হয়ে গেল সবচেয়ে বড় এই ফুটবল গ্রুপটির গেট টুগেদার অনুষ্ঠান, যেখানে প্রায় ১০০ এর মত ফুটবল ফ্যানরা উপস্থিত ছিল। একসাথে সময় কাটিয়েছে তারা গল্প করে, ছবি তুলে আর নিজেদের সম্পর্কে অনলাইনের বাইরে জেনে।
অনলাইনে দেখা যায় যারা সারাক্ষণ ঝগড়া করে থাকে, তারাও এক টেবিলে বসে দুপুরের খাবার খাচ্ছিল। বলা হয় বার্সা-রিয়াল, মিলান-জুভ, চেলসি-ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড-লিভারপুল, ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা এসব টিমের ফ্যানরা নাকি একে অপরের রাইভাল, নিজেদের খুঁত ধরার জন্য মুখিয়ে থাকে। অর্থাৎ তাদের মাঝে বাঘে-সিংহে লড়াই। বাস্তব জীবনে বাঘ-সিংহ একসাথে খাবার খেয়ে থাকুক না থাকুক, এই প্রতীকী বাঘ-সিংহরা ঠিকই সেই প্রথা ভেঙ্গেছে।

 

গেট টুগেদারে উপস্থিত এক যুগল

 

অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয় ধানমন্ডি বুমার্সে। শুরু হবার সময় বেলা ৩ টা ঠিক করা হলেও মেম্বাররা গ্রুপের টানে ২ টা থেকেই ভীড় জমাতে থাকে। তিনটা বাজার আগেই দেখা যায় পুরো বুমার্স লোকে লোকারণ্য।
এরপর সবাই কিছুক্ষণ হাসিমুখে গল্প-গুজব করার পর শুরু হয় খাবার পালা। এতগুলো মেম্বারকে একসাথে খাওয়ানো সহজ কাজ নয়। গ্রুপটির এডমিন প্যানেল নিজেরা উপস্থিত থেকে পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে সব পরিচালনা করে, কোথাও কোন ত্রুটি দেখাই যায়নি।

 

আড্ডারত অবস্থায় গ্রুপটির মেম্বাররা

 

খাওয়ার পর আবার ফুটবল নিয়ে নিজেদের মাঝে আড্ডা চলতে থাকে। এর মাঝে নিজেদের প্রাপ্য FFBD এর লগো সমৃদ্ধ টি-শার্ট টি পেয়ে যান উপস্থিত মেম্বাররা। এক পাশে বসে গানের আসর, মেম্বাররা গিটার বাজিয়ে-টেবিলকে ড্রাম বানিয়ে গান গাইতে থাকে।

 

গান গাওয়ারত অবস্থায় গ্রুপটির দুজন মেম্বার

 

সব কিছুর মাঝে হয়ে যায় কুইজ পর্ব। কুইজে দশটি প্রশ্ন ছিল ফুটবল সম্পর্কিত। উৎসবের আমেজে চলে কুইজ পর্ব, যেখানে বিজয়ী হন গ্রুপের মেম্বার মাহবুবুর রহমান।

এরপর গ্রুপ এবং http://uvlsports.com ওয়েব সাইটের জন্য তিন ক্যাটাগরিতে পুরষ্কার দেয়া হয়। যারা পেয়েছেন তারা হলেন,
আজীবন সন্মাননা: গিয়াসউদ্দিন বুলবুল
বেস্ট আর্টিকেল: কামিল আল আশিক
বেস্ট অথর: শিহাব রহমান।

এই তিনজন এবং কুইজ বিজয়ীকে পুরষ্কার এবং করতালি দিয়ে সন্মান জানানো হয়।

 

কুইজ বিজয়ীর হাতে পুরষ্কার তুলে দেবার মুহূর্ত

 

সব শেষে চলে কেক কাটার পর্ব। গ্রুপের সব মেম্বাররা মিলে একসাথে কেক কেটে সবাই রওনা দেয় রবীন্দ্র সরোবরে। সেখানের আড্ডা শেষ হতে হতে প্রায় রাত সাড়ে আটটা। এত সময় কিভাবে পার করল সবাই, তা কেউই টের পায়নি বোধহয়।

গেট টুগেদারে সবার সক্রিয় অংশগ্রহণ প্রমাণ করে দেয়, যে যেই ক্লাবেরই সাপোর্ট করুক, দিন শেষে সবাই ফুটবলের মাধ্যমেই সংযুক্ত। এবং তা শুধু অনলাইন জীবনে নয়, অফলাইনেও তারা এক হতে পারে এটার আদর্শ প্রমাণ ছিল ফুটবল নিয়ে সবার একত্রিত হয়ে আড্ডা দেওয়াটা। ফুটবল ফ্যান বাংলাদেশ আজ প্রায় পাঁচ বছরের মত সময় ধরে দেশের ফুটবল পাগল মানুষদের কাছে সময় কাটানোর খোরাক। গ্রুপটির এ জয়যাত্রা সামনেও বহাল থাকবে এটাই আশা করা যায়।

নতুন আর্টিক্যাল পাবলিশড হওয়া মাত্রই পড়তে চান?

আজই সাবস্ক্রিপশন করে নিন