হারিয়ে যাওয়া প্লেয়ারদের তালিকায় আরও একটি নাম যুক্ত হতে যাচ্ছে?

হারিয়ে যাওয়া প্লেয়ারদের তালিকায় আরও একটি নাম যুক্ত হতে যাচ্ছে?

হারিয়ে যাওয়া প্লেয়ারদের তালিকায় আরও একটা নাম যুক্ত হতে যাচ্ছে। প্লেয়ারটাকে আপনি টি-টোয়েন্টি, ওয়ান-ডে কোন দলেই রাখবেন না। টেস্ট স্পেশালিষ্ট হিসেবে রেখে দিবেন।কিন্তু টেস্ট খেলবেন বছরে ৫-৬ টা। সারা বছর ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট থেকে দূরে থাকা প্লেয়ারটি ৩-৪ মাস পরপর এক,দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজেই এসেই হান্ড্রেড মারবে আশা করবেন,ওয়াও! আপনার এক্সপেকটেশনকে বাহবা দিতে হয়। নিউজিল্যান্ড সিরিজেই রান করাটা প্লেয়ারটা এক সিরিজ, দুই ম্যাচ পরেই দল থেকে বাদ। কারণ সে গত চার,পাচ ইনিংস রান করতে পারেনি। দুই সিরিজে আগের বাংলাদেশী ব্রাডম্যান নাকি আজ স্পিনে ব্যাট করতে পারছে না, স্পিনে দূর্বল। কনফিডেন্স হারিয়ে ফেলছে। তাকে দল থেকে বাদ দিতে হবে,যাতে কনফিডেন্স ফিরে পেয়ে আবার ব্যাক করতে পারে। সিরিয়াসলি ? কোন পজিশনে খেলাবেন ওকে,ফিরিয়ে ? তিন নাম্বার পজিশনে, সেখানে ত অলরেডি এক্সপেরিমেন্ট শুরু করে দিছেন, সৌম্য কে দিয়ে। চার,পাচ, ছয় পজিশন ফিক্সড। সাত, আট পজিশনে অলরাউন্ডার হিসেবে খেলাবেন? একজন জেনুইন ব্যাটসম্যানকে? সারা বছর খেলার ভিতর থাকা প্লেয়াররা টানা ৯,১০ ইনিংস ২০,৩০ এর বড় স্কোর করতে না পারলেও তারা দলে থাকতে পারবে, তাদের রিপ্লেসমেন্ট কেউ হতে পারবে না। কিন্তু মমিনুল এক সিরিজ রান না পেলেই তার যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন হবে। নেক্সট টেস্ট সেপ্টেম্বরে, প্রায় ৭ মাস পর। বলতে গেলে টপ অর্ডারের জন্য ব্যাটসম্যান সেট। সৌম্য যদি দুই ইনিংস মিলিয়ে একটা টিটোয়েন্টি স্টাইলে ফিফটি বা ৩৫-৪০ করে ফেলে তাইলে তিন নাম্বার জায়গা ওর হয়ে যাবে। হয়তো আজীবনের জন্য বন্ধ হয়ে যাবে, মমিনুলের জাতীয় দলের দরজা। আমি সাধারণত বাদ পড়া প্লেয়ারের জন্য কান্নাকাটি করি না। কিন্তু মমিনুলের ব্যাপারে বলতেই হলো। তার সাথে যে অন্যায় করা হচ্ছে টেস্ট স্পেশালিষ্ট ব্যাটসম্যান বলে সুযোগ না দিয়ে সেটা নিয়ে বলতেই হলো।

উল্লেখ্য, ২২ ম্যাচে, ৪০ ইনিংসে ১৬৮৮ রান আছে তার ৪৬.৮৮ গড়ে। ৪ টি শতক ও ১১ টি অর্ধশতকে সমৃদ্ধ তার এই ক্যারিয়ার। ধন্যবাদ মমিনুল। আমাদের এরকম ব্র‍্যাডমীনয় গড় উপহার দেওয়ার জন্য।

নতুন আর্টিক্যাল পাবলিশড হওয়া মাত্রই পড়তে চান?

আজই সাবস্ক্রিপশন করে নিন