বার্সেলোনার হয়ে কুতিনহোর অভিষেক, নতুন জার্সিতে পুরোনো ঝলক

বার্সেলোনার হয়ে কুতিনহোর অভিষেক, নতুন জার্সিতে পুরোনো ঝলক

কোপা দেল রে সেকেন্ডে লেগে প্রথম হাফেই বার্সেলোনা ২:০ গোলে এগিয়ে। সেকেন্ড হাফ শুরু হবার কিছুক্ষন পর দেখা গেল মাঠের সাইডলাইনে গা গরম করে নিচ্ছে তিনজন প্লেয়ার। পাওলিনহো, আন্দ্রে গোমেজ এবং ফিলিপে কৌতিনহো। ম্যাচে তখন ৬৮ মিনিট ফিলিপে কৌতিনহো ১৪ নম্বর জার্সিটা পড়ে মাঠের কর্নারে যখন এসে দাড়ালেন ক্যাম্প ন্যু তখন উত্তাল। আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার সাথে বদলি হিসেবে মাঠে যখন নামলেন বার্সেলোনা তখন যেন ম্যাচের সেরা সময়ই পার করলো। এই আন্দ্রেস ইনিয়েস্তার শুন্যতা পুরনের জন্যই এতো দাম দিয়ে তাকে ক্যাম্প ন্যুতে আনা হয়েছে। ১৪ নম্বর জার্সিটা পড়ে যখন সাইডলাইনে এসে দাঁড়ালেন নিশ্চয়ই তার হৃদস্পন্দন খানিকটা বেড়ে গেছিলো। লা লীগা তার জন্য নতুন নয়। ইন্টারের হয়ে লোনে এই এসপানিওলের হয়ে তিনি এর আগে খেলে গেছেন। কিন্ত কাল যে বার্সেলোনার হয়ে মাঠে নামার পর তার ক্যারিয়ারের নতুন একটা অধ্যায় শুরু হলো।


ম্যাচে খেলেছেন মোটে ২২ মিনিট। তবে ডেব্যু ম্যাচে একজন প্লেয়ারের কাছ থেকে যেমনটা আশা করা যায় কৌতিনহো তার থেকে বেশি ঝলক দেখিয়েছে। বার্সেলোনা দর্শকও তাকে বাহাবা দিতে ভোলে নি, যখনই তার পায়ে বল গেছে কিউলরা চিৎকার করেছে তার নাম ধরে। ২২ মিনিট খেলায় কৌতিনহোর এ্যাকুরেট পাস ৮৬.২%। যার মধ্যে কী পাস ২ টি। অন টার্গেটে কোন শর্ট না করলেও দারুন একটা চান্স ক্রিয়েট করেছিলেন যদিও লুইস সুয়ারেজ তাতে গোল করতে পারে নি। ২ টা ড্রিবল করে ২ টাতেই সফল। এবং সর্বশেষে প্রথম ম্যাচে এভারেজ রেটিং ৭.৩। 


ইঞ্জুরি সমস্যা না থাকলে এই আরাধ্য ডেব্যু হতে পারতো অনেক আগেই। হয়তো এতোদিনে দলের সাথে আরেকটু মানিয়ে নিতে পারতেন। হয়তো সেটা হয় নি কিন্ত কেন তাকে বার্সেলোনা এতো অর্থ খরচ করে দলে নিয়েছে এবং দলের জন্য তিনি কি করতে পারেন তা ডেব্যু ম্যাচেই অনেকটাই পরিষ্কার। এ সিজনে আর উয়েফা চ্যাম্পিয়ন লীগে খেলতে পারবে না কিন্ত ফিট থাকলে লীগ এবং কোপা দেল রে এর স্কোয়াডে কৌতিনহো অটো চয়েজ। এ সিজনের পর ইনিয়েস্তার প্লেয়িং টাইম কমে যেতে পারে তখন বার্সেলোনার মধ্যমাঠ বা আক্রমনের বাম পাশের গুরুদায়িত্ব থাকতে পারে তার উপর। তাই সেসবের আগে যথেষ্ট সময় আছে বার্সেলোনার খেলার সাথে আরেকটু খাপ খাইয়ে নেবার।

নতুন আর্টিক্যাল পাবলিশড হওয়া মাত্রই পড়তে চান?

আজই সাবস্ক্রিপশন করে নিন