ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোঃ বারবার ফুরিয়ে যাওয়া এক যোদ্ধার ফিরে আসার কাহিনী

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোঃ বারবার ফুরিয়ে যাওয়া এক যোদ্ধার ফিরে আসার কাহিনী

ফুটবল বিশ্বে বিভিন্ন প্রতিভাধর প্লেয়ার এর প্রতিপত্তি হয়েছে প্রায় শুরুর থেকেই। কত রকমের প্রতিভা, কতো রকমের অর্জন, কত রকমের গল্প। এত কিছুর মাঝেও কিছু বিশেষ খেলোয়াড় থাকে যারা অন্য সকল নক্ষত্রের থেকে একটু বেশী জ্বলজ্বল করে, তাদেরকেই ফুটবল বিশ্বের বর্তমানের প্রচলিত শব্দ "GOAT" দ্বারা সম্বোধন করা হয় অর্থাৎ Greatest Of All Time . লিওনেল মেসি, এই নামটি গত কয়েক বছরে ফুটবল বিশ্বে তেমন ই এক উজ্জ্বলতম নক্ষত্রের নাম। ঠিক একই সময়ে আরেকটি উজ্জ্বল নক্ষত্র রোনালদো। কিন্তু লিওনেল মেসি যার আলোকদ্যুতির কাছে ক্রিস্টিয়ানো নামক নক্ষত্র প্রায় ম্লান হয়ে গিয়েছিল। ফুটবল পণ্ডিত, সাবেক ফুটবলার কিংবা বর্তমান ফুটবলাররা মেসি কে রোনালদোর থেকে বেশী কদর করতেন। তাদের বক্তব্য অনুসারে মেসির থেকে রোনালদো প্রতিভার এর দিক থেকে ঢের পিছিয়ে। এমন বলার কারণও রয়েছে। ব্যাক্তিগত সেরার বাৎষরিক পুরষ্কার ব্যালন ডি'ওর কিংবা ফিফা ব্যালন ডি'ওর ই বলুন তাতে মেসি রোনলাদো থেকে ১-৪ ব্যাবধানে এগিয়ে ছিলেন। এর উপরে মেসির তুখর ফর্ম।


ব্যাক্তিগত পরিসংখ্যান দিয়ে প্রায় কাছাকাছি কিংবা মেসিকে মাঝে মাঝেই ছাড়িয়ে গেলেও দলীয় সাফল্যর কারণে বারবার রোনালদো পিছিয়ে যাচ্ছিলো। যখন দুইজন প্রায় একই ক্ষমতার পারফর্ম করে তাদের পার্থক্য তৈরি হয় ঐ দলীয় সাফল্যই। আর সেই দলীয় সাফল্যতেই বরাবর পিছিয়ে পড়তেন রোনালদো। বার্সার সোনালী যুগে রিয়ালকে ঘাড়ে নিয়ে টানতেন রোনালদো কিন্তু বারবার ব্যর্থ। তখন হয়তো কেউ ভাবেও নি রোনালদো মেসি কে ধরে ফেলবেন। ট্রল আর মিডিয়া এই দুইটার যাতাকলে রোনালদো প্রায় ধরাশয়ী । শ্যাম্পুর বোতল হাতে, ভুল সময়ে জন্ম ইত্যাদি রকমের বিশ্রী ট্রলের শিকার হয়েছেন তিনি। কিন্তু যেই ব্যাক্তি পৃথিবীতে আসতেই বাঁধার মুখে পরেছিলেন সেই ব্যাক্তি এইরকম বাধা বিপত্তির সামনে হার মানবেন তাও কিন্তু বেমানান।

উজাড় করে দেওয়া, কঠোর পরিশ্রম, আর লড়াকু মানসিকতা। এই তিনের সমন্বয়ে আজ ঠিকই ধরে ফেলেছেন আর্চ রাইভাল মেসিকে। কিছু ক্ষেত্রে তিনি এগিয়েও আছেন হয়তো। অবশ্যই তা প্রশংসনীয় যদি আপনি ঘৃণার চোখে না দেখেন। আজ রিয়াল তাদের সাফল্য উপভোগ করছে, রোনালদোর রিয়াল এখন সোনালী সময় অতিবাহিত করছে। বিশ্বাস না হলে ৪ বছরে ৩ টি ইউসিএল অর্জন এর দিকেই লক্ষ্য করুন- উত্তর পেয়ে যাবেন।

মেসি-রোনালদোর তুলনায় সবচেয়ে মুখ্য যেই বিষয় বিবেচনা করা হয় সেটি হলো মেসি অসাধারনভাবে প্রতিভাবান। কিন্তু রোনালদো অনেক পরিশ্রমী। তবে আমার কাছে রোনালদো কে প্রতিভাবান না শুধু পরিশ্রমী বলাটা হাস্যকর মনে হয়।

গাধা নাকি বনে ১৮ ঘন্টা পরিশ্রম করে। অথচ সিংহ পরিশ্রমও করে না তার স্ত্রী সিংহ তার জন্য খাবার এর ব্যাবস্থা করে। কিন্তু তবুও সে বনের রাজা। অর্থাৎ প্রতিভাবিহীন পরিশ্রম মূল্যহীন। তাই কারোর প্রতিভা নেই সে শুধু পরিশ্রম এর জোরেই এতো কিছু করছে তা সম্পূর্ণ ভুল। তেমনি শুধু প্রতিভা দিয়েই আপনি টিকে আছেন তাও সম্পূর্ণ ভুল। নাহলে ফুটবল বিশ্বে অনেক প্রতিভাবান ফুটবলার পরিশ্রমের অভাবে হারিয়ে যেতেন না। তাই মেসি-রোনালদো দুজনকেই সম্মান দিতে শিখুন।

যাই হোক রোনালদো মিডিয়ার কাছে অত্যন্ত সমালোচিত ব্যাক্তিত্ব। যার ফুরিয়ে যাওয়ার চিত্র আমরা প্রতি মৌসুমের শুরুতেই দেখতে পারি । রোনালদো ফুরিয়ে গেছেন, এই শব্দ দিয়ে যদি গুগলে অনুসন্ধান করা হয় ঢের পরিমাণ নিউজ পাওয়া যাবে। অথচ ব্যাক্তিগত সাফল্য এবং দলীয় সাফল্যের মধ্যে ডুবে আছেন তিনি এখনও। প্রায় প্রতি মৌসুম শেষেই তিনি মেসির সাথে তালে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন তবুও তার ফুরিয়ে যাওয়ার গল্পের সমাপ্তি হয় না। তবুও সেই সমালোচনা, কিন্তু এই সমালোচনার জবাব এবং এই সমালোচনাই তাকে আরও অপ্রতিরোধ্য করে। সমালোচনার জবাব সাফল্য দিয়ে কিভাবে দিতে হয় উদাহরণ নিতে হলে বর্তমানে ক্রিস্টিয়ানোর থেকে ভালো উদাহরণ আমার চোখে পরে না। 

ঘৃণা কিংবা অপছন্দ যাই করুন না কেন। ব্যালন ডি'অর পুরস্কারে ১-৪ এর ব্যবধান থেকে ৫-৫ এ আসা ফুটবল বিশ্বে কতটুকু কঠিন তা আপনি একজন ফুটবল ভক্ত হলে বুঝতে কষ্ট হওয়ার কথা না। জীবনে অনুপ্রেরণার এর জন্য আদর্শ একটি উদাহরণ এই রোনালদো । যার ফুরিয়ে যাওয়া হয় প্রত্যেক মৌসুমেই কিন্তু নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়া অব্যহত রেখেছেন তিনি। আজ হয়তো অনেকেই বলবেন এতো কষ্ট করে ধরতে হয়েছে মেসিকে। নেতিবাচকভাবে কিংবা ইতিবাচকভাবে নেন তবে ভিতরে ভিতরে আপনার মন থেকে হয়তো বাহবা দিতে ইচ্ছা করবে এই রোনালদোর জন্য যিনি কিনা এমন "কামব্যাক" করে দেখিয়েছেন। ফুটবল ইতিহাস ঘাটলে এমন আরেকটি উদাহরণ পাবেন কিনা আমার সন্দেহ আছে।

পরিশেষে বলব, সৃষ্টিকর্তা কখনও কাউকে ভুল সময়ে পাঠান না। উদাহরণ হিসেবে রোনালদো কেই নিতে পারেন। ভুল সময়ে নয় সঠিক সময়েই জন্মগ্রহণ করেছেন এই রোনালদো। তাই তো আজ মেসির সাথে ব্যাক্তিগত সাফল্যের লড়াইয়ে আজ কাধে কাধ মিলিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন।

নতুন আর্টিক্যাল পাবলিশড হওয়া মাত্রই পড়তে চান?

আজই সাবস্ক্রিপশন করে নিন