ফুটবলে ৭ নাম্বার জার্সির মহাত্ব্য (পর্ব- ৪)

ফুটবলে ৭ নাম্বার জার্সির মহাত্ব্য (পর্ব- ৪)

জার্সি নং ৭। মূলত প্রথাগত রাইট উইংগার রাই পরিধান করেন, যাদের মূল কাজ মিডফিল্ড থেকে বল সংগ্রহ করে ক্রমাগত একপাশ থেকে চাপ সৃষ্টি করে দলের সেরা প্লেয়ার বা স্ট্রাইকার কে বল যোগান দেয়া এবং সাথে সাথে স্কোর করার অসামান্য ক্ষমতা। যুগে যুগে ফুটবল আমাদের অসাধারণ কয়জন নাম্বার ৭ উপহার দিয়েছেন, তাদের কয়েকজন এর ব্যাপারে তুলে ধরার ক্ষুদ্র প্রয়াস মাত্র।

৪.আন্দ্রেই শেভচাঙ্কোঃ

তাকে বলা হয় পূর্ব ইউরোপের সবচেয়ে প্রতিভাধর ফুটবলার। সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে টুকরো হবার আগে এই প্রতিভাবান ফুটবলার এর জন্ম হয় ইউক্রেন এ। খুব ছোট বয়সে ইউথ ক্যারিয়ার শুরু করেন ডায়নামো কিয়েভে। ১৯৮৪ -১৯৯৩ পর্যন্ত ইউথ ক্যারিয়ারের পর ডাক পান ডায়নামো কিয়েভ এর মূল দলে। ১৯৯৪ থেকে ৯৯ পর্যন্ত অসাধারন পারফরমেন্স করেন ডায়নামো কিয়েভে। ৯৭-৯৮ মৌসুমে বার্সার বিপক্ষে চ্যাম্পিয়নস লীগের বাছাই পর্বে হ্যাট্রিক করে আলোড়ন ফেলে দেন, তাও প্রথমার্ধে। ডায়নামো কিয়েভে থাকা কালীন ৫ মৌসুম এর প্রত্যেক মৌসুমেই ইউক্রেন প্রিমিয়ার লীগ জিতেছিলেন, জিতেছেন ৩টি ইউক্রেন কাপ। ১৯৯৯ সালে এসি মিলানে পাড়ি জমান, যেখানে তিনি বিখ্যাত হয়েছিলেন। ১৯৯৯ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত এই ইতালীয় জায়েন্ট টিম এর অংশ ছিলেন। হয়েছেন ক্লাবটির দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা। জিতেছেন ১টি চ্যাম্পিয়নস ট্রফি, ২ টি উয়েফা সুপার কাপ, ১টি ইতালীয়ান লীগ, ২টি ইতালিয়ান সুপার কাপ।

ব্যাক্তিগত সর্বোচ্চ সম্মাননা ব্যলন ডি অর পান ২০০৪ মৌসুমে। যে মৌসুমে মিলানকে ট্রেবল জিতিয়েছিলেন। ইতালিয়ান লীগের সবচেয়ে জনপ্রিয় মিলান ডার্বির সর্বোচ্চ গোলদাতাও তিনি ১৪ গোল করে। ২০০৬ সালে চলে আসেন চেলসিতে, চেলসিতে অর্জন ১টি প্রিমিয়ার লীগ, ১টি এফ এ কাপ, এবং ২০০৯ সালে আবার মিলানে লোন ফেরত। যেহেতু মিলান তার অন্তরের ক্লাব ছিল, সেহেতু লোনে মিলান ফেরত যাওয়াটাকে এক প্রকার অর্জনই বলা চলে। ২০১০ এ ফেরত আসেন শৈশবের ক্লাব ডায়নামোতে সেখান থেকেই ২০১২ সালে অবসর নেন।

তার প্লেয়িং স্টাইল ছিল গতি, স্কিল এবং পুরো মাঠ ডমিনেট করে খেলার ক্ষমতায় ভরপুর। প্রথাগত সেন্টার ফরোয়ার্ড এর রোল পালন করলেও লেফট উইং ও ছিলেন সমান দক্ষ। সতীর্থদের পজিশন বুঝে একুরেট পাসিং এও ছিলেন সেরা। ক্যারিয়ার এর সোনালী সময় পার করেছিলেন এসি মিলানে। তাকে বলা হয় 'মোস্ট প্রলিফিক গোলস্কোরার' ইন এসি মিলান হিস্ট্রী।

ইউক্রেইনের হয়ে ১১১ ম্যাচ খেলে করেছেন ৪৮ গোল। শুধু তাই নয়, ২০১২ সালে ডায়নামো কিয়েভ থেকে অবসর নিয়ে ইউক্রেন ফরোয়ার্ড নামক এক রাজনৈতিক দল থেকে নির্বাচনেও দাঁড়িয়েছিলেন আন্দ্রে 'শেভা। খেলার পাশাপাশি দেশের জন্য কিছু করার সুযোগ এমন কয়জনের ভাগ্যে জোটে!

নতুন আর্টিক্যাল পাবলিশড হওয়া মাত্রই পড়তে চান?

আজই সাবস্ক্রিপশন করে নিন